রবিবার, ফেব্রুয়ারী ২৮, ২০২১

স্টার চ্যানেল বয়কট নিয়ে কোয়াবের দ্বন্দ্ব ফের প্রকাশ্যে

নিজস্ব প্রতিবেদক | আপডেট: বৃহস্পতিবার, নভেম্বর ৫, ২০২০

স্টার চ্যানেল বয়কট নিয়ে কোয়াবের দ্বন্দ্ব ফের প্রকাশ্যে

বাংলাদেশে যাদু ডিজিটাল পরিবেশিত ভারতীয় স্টার গ্রুপের সবকটি চ্যানেলকে বয়কট করার যে ঘোষণা এরই মধ্যে স্যোশাল মিডিয়ায় প্রচারিত হয়েছে তা নিয়ে ক্যাবল অপারেপটরস অব বাংলাদেশ (কোয়াব) এর নেতৃত্বের দ্বন্দ্ব ফের প্রকাশ্যে এসেছে।

গত ৪ নভেম্বর কোয়াবের ঐক্য পরিষদের নামে প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি এস.এম আনোয়ার পারভেজ স্বাক্ষরিত একটি বিজ্ঞপ্তিতে এই বয়কটের আহ্বান করা হয়। গণমাধ্যমে পাঠানো ওই প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয় “স্টার গ্রুপের যাদু ভিশন লিমিটেড পরিবেশিত পে-চ্যানেল সমূহ ৪ঠা নভেম্বর ২০২০ হতে স্টার জলসা, স্টার প্লাস, স্টার গোল্ড, ন্যাশনাল জিওগ্রাফি, লাইফ ওকে ইত্যাদি চ্যানেল অনির্দিষ্ট সময়ের জন্য প্রতিবাদ স্বরুপ বন্ধ থাকবে।” 


বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, গত ২৮ অক্টোবর সংবাদ সম্মেলন থেকে ৭ দিনের সময় দিয়ে যাদু কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলেও তারা সাড়া দেয়নি। তাদের বিরুদ্ধে অনিয়মের অভিযোগ উল্লেখ করা হলেও কি অভিযোগ তা বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়নি।

এ বিজ্ঞপ্তি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রচারের পর তীব্র প্রতিক্রিয়া দেখাতে থাকেন কোয়াব সদস্যবৃন্দ।


কোয়াব সমন্বয় কমিটির একটি নিজস্ব গ্রুপে বিষয়টি নিয়ে পরষ্পর দোষারোপ করে পোস্ট দৃশ্যমান হয়েছে। এ ব্যাপারে সমন্বয় কমিটির আহ্বায়ক শামসুর রহমান শিমুল তার স্ট্যাটাসে লিখেছেন ”কোয়াবের নাম ব্যাবহার করে মিডিয়া এবং সরকার কে বিভ্রান্ত তৈরি কোরছে একটি মহল l সাবেক কমিটির সভাপতি যে নিজেকে প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি হিসাবে পরিচয় দিয়ে থাকে অথচ তাকে পদচ্যুত করা হয়েছিলো কোয়াবের অনিয়ম ও দু্রনীতির জন্য .... তাদের অতীত কর্মকান্ডের খেসারত আজ অবধি আমরা দিয়ে যাচ্ছি l তাদের সার্থ রক্ষার জন্য কেউ চ্যানেল বয়কট করবেন না l ক্যাবল অপারেটরস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (কোয়াব) " সমন্বয় কমিটি " স্টার চ্যানেল বয়কট আন্দোলনকে কোনো ভাবেই সমর্থন করে না । আমরা আলাপ- আলোচনার মাধ্যমে সমস্যার সমাধানে বিশ্বাস করি। গ্রাহকরা আকাশ (DTH) এবং IP টিভির প্রতি নির্ভরশীল হয়ে পড়বে। গ্রাহক স্বার্থ বিবেচনায় বয়কট আন্দোলন থেকে বিরত থাকার জন্য ক্যাবল অপারেটরদের প্রতি আহবান রইলো।”।


গ্রুপ এডমিন এস.এম আলী চঞ্চল লিখেছেন “ক্যাবল অপারেটরস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (কোয়াব) " সমন্বয় কমিটি " স্টার চ্যানেল বয়কট আন্দোলনকে কোনো ভাবেই সমর্থন করে না । আমরা আলাপ-আলোচনার মাধ্যমে সমস্যার সমাধানে বিশ্বাস করি। গ্রাহকরা আকাশ (DTH) এবং IP টিভির প্রতি নির্ভরশীল হয়ে পড়বে। গ্রাহক স্বার্থ বিবেচনায় বয়কট আন্দোলন থেকে বিরত থাকার জন্য ক্যাবল অপারেটরদের প্রতি আহবান রইলো। “



মুদাসসির রহমান নামে এক সদস্য মন্তব্য করেছেন “ কেবল অপারেটর ভাইয়েরা কোয়াবের দূর্নীতিগ্রস্হ অব্যাহতিপ্রাপ্ত নেতাদের প্ররোচনায় STAR গ্রুপের চ্যানেল বন্ধ করবেন না।তারা পে চ্যানেলের নবায়ন ফি পরিশোধ না করে চ্যানেল চালাতে চায় “। বিডি জিকু আলম ঐক্য পরিষদের বিজ্ঞপ্তিটি শেয়ার করে লিখেছেন “ সম্পুর্ণ সমথর্ন থাকবে ইনশাআল্লাহ।”

তবে বয়কটের এমন পরিস্থিতির মধ্যে দেশের কোথাও এসব চ্যানেল বয়কট করা হয়েছে এমন কোন তথ্য পাওয়া যায়নি। তবে সাধারণ সদস্যরা চাইছেন এসব দলাদলির পরিবর্তে
একত্রিত হয়ে সামনের পথ চলতে। বিষয়টিকে গুরুত্ব দিয়ে তারা সকল নেতৃবৃন্দকে এক হয়ে ক্যাবল অপারেটরদের কল্যাণে কাজ করার আহ্বান জানিয়েছেন।