কুড়িয়ে পাওয়া ৫০ হাজা টাকা ফেরত দিলেন চটপটি বিক্রেতা

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি : বৃহস্পতিবার রাতে বাড়ি ফিরছিলেন চটপটি বিক্রেতা বেলাল হোসেন। চলতি পথে তিনি কুড়িয়ে পান ৫৩ হাজার ৫০০ টাকা।

সেই টাকার লোভ সামলিয়ে পুরো টাকা নিয়ে হাজির হন কোলা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আয়ুব হোসেনের বাড়িতে। প্রকৃত মালিকের কাছে তিনি টাকাগুলি ফেরত দিতে বলেন।

আর তার সততার কারনে বেঁচে গেল ক্ষুদ্র কাঠ ব্যবসায়ী আব্দুর রশিদ।

চটপটি বিক্রেতা বেলাল হোসেন ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ উপজেলার কোলা গ্রামের নুরুল হক মোল্ল্যার ছেলে। আর টাকা হারানো ক্ষুদ্র কাঠ ব্যবসায়ীর আব্দুর রশিদের বাড়ি একই উপজেলার পারখালকোলা গ্রামে।

জানা গেছে, চটপটি বিক্রি করে বৃহস্পতিবার রাতে বাড়ি ফিরছিলেন বেলাল হোসেন। এ সময় পথে একটি টাকার বান্ডিল পেয়ে রাতেই উপস্থিত হন এলাকার চেয়ারম্যানের বাড়িতে।

পরে শুক্রবার চেয়ারম্যান আয়ুব হোসেন এলাকায় প্রচার প্রচারণা চালিয়ে টাকার মালিক কে খুঁজে বের করে কুড়িয়ে পাওয়া টাকা তুলে দিলেন প্রকৃত মালিক আব্দুর রশিদের হাতে।

বেলাল হোসেন বলেন, আমি নিজে একজন অভাবী মানুষ। বাবা মায়ের অভাবের সংসারে ছোট থেকে বড় হয়েছি। সব সময় সৎ উপায়ে কর্ম করে সংসার চালায়। কখনও কারও অর্থের প্রতি লোভ করিনি। প্রকৃত মালিকের হাতে টাকাটা ফেরত দিতে পেরে আমি খুশি।

এদিকে হারানো টাকা ফিরে পেয়ে প্রতিক্রিয়ায় আব্দুর রশিদ বলেন, আমি নিজেও গরীব মানুষ। ধারদেনা করে কাঠের ব্যবসা করি। আমার হারানো টাকাটা ফেরত পেয়ে মানুষ সম্পর্কে আমার ধারনা পাল্টে গেছে।

কোলা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আয়ুব হোসেন জানান, অভাব মানুষকে নষ্ট করতে পারে না বেলাল তার উৎকৃষ্ট উদাহরণ।

ঢা/এমএম

আরো দেখাও

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Close