খেলোয়াড়দের আন্দোলন ক্রিকেট ধ্বংসের ষড়যন্ত্র: পাপন

স্পোর্টস ডেস্ক : খেলোয়াড়দের এই আন্দোলনকে ষড়যন্ত্রের অংশ হিসেবে আখ্যায়িত করেন বিসিবি সভাপতি।

বাংলাদেশের ক্রিকেটকে অকার্যকর ও অস্থিতিশীল করতেই খেলোয়াড়রা এই আন্দোলন নেমেছে বলে মন্তব্য করেছেন বিসিবি প্রেসিডেন্ট নাজমুল হাসান পাপন।

এমনকি, দাবি পেশ না করেই খেলা বন্ধ করার সিদ্ধান্তকে ষড়যন্ত্রের অংশ মনে করছেন নাজমুল হাসান পাপন।

বেতন-ভাতা বৃদ্ধিসহ ১১ দফা দাবিতে গতকাল থেকে দেশের শীর্ষ ক্রিকেটাররা আন্দোলনে নামে। এরপর, আজ মঙ্গলবার ক্রিকেটারদের আন্দোলন ও দাবির বিষয়ে ক্রিকেট বোর্ডের অবস্থান তুলে ধরেন বিসিবি সভাপতি।

সংবাদ সম্মেলনে পাপন দাবি করেন, কেন এবং কোন কুচক্রী মহল খেলোয়াড়দের দিয়ে এ আন্দোলন করাচ্ছে সেটাও তিনি জানেন। আর পাপন এও জানান, খেলোয়াড়দের দাবি মানা হবে তবে, তার আগে বোর্ডের সঙ্গে আলোচনা করতে হবে।

আলোচনা না করেই বা বোর্ডের কাছে দাবি পেশ না করেই আন্দোলনে যাওয়ায় নিজের অবাক হওয়ার কথাও জানান নাজমুল হাসান পাপন।

সংবাদ সম্মেলনে বিসিবি সভাপতি বলেন, খেলোয়াড়রা আমাদের না জানিয়ে আন্দোলনে যাওয়ায় আমি অবাক হয়েছি। ওদের কোনো দাবি থাকলে আমাকে জানাত। ওদের ২৪ কোটি টাকা বোনাস দিয়েছি। কোন বোর্ড এমন করে, তারপরেও তারা এমন আচরণ করায় আমি বিস্মিত। ওদের সঙ্গে এতো ভালো সম্পর্ক থাকার পরেও আমাদের কিছু বললো না। এটা পূর্বপরিকল্পিত এবং ষড়যন্ত্রের অংশ। বাংলাদেশের ক্রিকেটকে অস্থিতিশীল করতে এই চক্রান্ত করা হচ্ছে।’

বেতন ভাতা বৃদ্ধিসহ নানা দাবিতে একজোট হয়েছেন সাকিব-তামিম-মুশফিকসহ দেশের শীর্ষ ক্রিকেটাররা। সঙ্গে আছেন জুনিয়রর ক্রিকেটাররাও। বিসিবির সাফ কথা এ সবই ষড়যন্ত্র তত্ত্ব। তাঁদের বেতন-ভাতা সবই ঠিকই আছে। চাইলে আরও বাড়ানো হবে। খেলার সংখ্যাও বাড়ানো হবে, তবে খেলতে হবে জাতীয় দলের ক্রিকেটারদের। সব চাইতে বড় কথা, যেই দাবিগুলো ক্রিকেটাররা করেছে সেগুলোর বেশিরভাগই মানা হবে তবে বোর্ডকে নাকি কখনই এসব বিষয়ে কিছুই জানায়নি খেলোয়াড়রা।

পাপন আরও বলেন, দেশের ক্রিকেটের উন্নতি নয় বরং পেছনের দিকে ঠেলে দিতেই ভারত সফরের আগে এমন বয়কট।

আরো দেখাও

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Close