জামাই-শাশুড়ির প্রেম নিয়ে তোলপাড়

অপমানে শ্বশুরের আত্মহত্যা

নিউজ ডেস্ক: ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ উপজেলার মহেশ্বরচাঁদা গ্রামে জামাই শাশুড়ির মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক জানাজানি হওয়ায় অপমান সইতে না পেরে শ্বশুর আসাদুল ইসলাম (৪০) নামে এক ব্যক্তি আত্মহত্যা করেছেন।

বৃহস্পতিবার(১৮জুলাই)দুপুরে এ ঘটনায় গ্রামবাসী জামাতা বিল্লাল হোসেন (২০) ও শাশুড়ি সুফিয়া খাতুনকে আটকে রাখে। মুত আসাদুল ইসলাম উপজেলার মহেশ্বরচাদা গ্রামের সবের আলী মন্ডলের ছেলে।

স্থনীয় গ্রামবাসীর অভিযোগ, ৪ মাস আগে ঝিনাইদহ কালীগঞ্জ উপজেলার মহেশ্বরচাঁদা গ্রামের আসাদুল ইসলামের মেয়ের সাথে পার্শ্ববর্তী শালিখা গ্রামের বিল্লাল হোসেনের বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে শাশুড়ি সুফিয়া খাতুনের ও জামাই বিল্লালের সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে।

জামাই-শাশুড়ির প্রেমের সম্পর্ক শুরু থেকে কেউ না জানলেও বিষয়টি গত কয়েক দিন আগে ফাঁস হয়। এ নিয়ে আসাদুল ও স্ত্রী সুফিয়ার মধ্যে বাকবিতণ্ডা হয়।

পরে এক পর্যায়ে বুধবার দুপুরে আসাদুল পাশ্ববর্তী মাঠে গিয়ে বিষ পান করে। পরে স্থানীয়রা উদ্ধার করে কালীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

ইউপি সদস্য আব্দুল গনি জানান, জামাই বিল্লাল হোসেন ও শ্বাশুড়ি সাথে প্রেমের সম্পর্কের কারণে বুধবার বিকালে কীটনাশক পান করে আসাদুল। এর পর সে মারা যায়। গ্রামবাসী এ ঘটনার পর থেকে জামাই বিল্লাল হোসেন ও সুফিয়াকে  আটক করে রেখেছে। জামাই তার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করা হচ্ছে বলে দাবি করেছেন।

এদিকে জামাই বিল্লাল হোসেনর দাবি, আমার বিয়ে হয়েছে ৪ মাস। আমি মোটর গাড়িতে কাজ করি। শ্বশুরবাড়িতে আসার সময় পাইনা। এ সব সাজানো নাটক এবং গ্রামবাসী আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ দিচ্ছে।

কালীগঞ্জ থানার ওসি ইউনুচ আলীর কাছে এবিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন,  বিষয়টি সম্পর্কে তার কাছে কেউ লিখিত অভিযোগ করেনি।

আরো দেখাও

সম্পর্কিত নিবন্ধ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো দেখুন

Close
Close